চরফ্যাশন(ভোলা)প্রতিনিধি।।ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার শশীভূষণ থানার এওয়াজপুর থেকে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।সোমবার (৮ জুন) এওয়াজপুর ৪নং ওয়ার্ডের ওই গৃহবধুর শশুর বাড়ির পুকুর পাড়ে গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। গৃহবধু জেসমিন ওই গ্রামের আবুল কালামের স্ত্রী। এদিকে লাশ উদ্ধার পর থেকে গৃহবধুর স্বামী পলাতক।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তাদের দুই বছর পূর্বে বিয়ে হয়। সংসার জীবনে প্রথম থেকেই স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলে আসছিল। রোববার রাতে তাদের মধ্যে বাক বিতন্ডা হয়। সোমবার সকালে ওই গৃহবধুর সৎ শাশুড়ি ঘুম থেকে উঠে গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে চিৎকারে প্রতিবেশিরা ছুটে আসে। তখন ছেলও ঘুম থেকে উঠে আসে। পুলিশ খবর পেয়ে ওই গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

জেসমিনের মা নুরজাহান জানান, তার মেয়েকে যৌতুকের দাবিতে এমনটা করেছে। প্রায় ৪লক্ষ টাকা যৌতুক নেওয়ার পরে আবারও ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য তার মেয়েকে প্রতিনিদিন চাপ সৃষ্টি করে আসছিল। জেসমিনের পরিবার টাকা না দেওয়ায় কয়েকবার তার বাবার বাসায় পাঠিয়ে দেয়। তার জের ধরে স্বামী এবং তার শশুর-শাশুড়ি মেরে তার মরদেহ গাছের সাথে ঝুলিয়ে রাখে।

শশীভূষণ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,লাশ ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট এলে জানা যাবে এটি হত্যা, না আত্মহত্যা।