স্মরণকালের মধ্যে এত খারাপ অবস্থা আর হয়নি। দাবানল ছড়িয়ে পড়ছে দেশে দেশে। দাবানলে পুড়ছে বাড়ি। নেভানোর জোর চেষ্টা চালাচ্ছে দমকলকর্মী ও বাসিন্দারা। সোমবার গ্রিসের দ্বিতীয় বৃহত্তম দ্বীপ এভিয়ার একটি গ্রামের দৃশ্য। গ্রিসজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে দাবানল। নেভাতে হাজার হাজার দমকলকর্মী কাজ করছেন। এক সপ্তাহের চেষ্টায় রাজধানী এথেন্সের শহরতলির আগুন নেভানো সম্ভব হয়েছে। তবে ইভিয়া দ্বীপের পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে। আগুনে ইতোমধ্যে উপকূলীয় এলাকার বিস্তীর্ণ পাইন বন পুড়ে কয়লা হয়ে গেছে। শত শত বাড়ি ধ্বংস হয়েছে। ভিটেমাটি ছেড়ে পালিয়েছে হাজার হাজার অধিবাসী। গ্রিসে প্রবল হাওয়া বইছে। ফলে আগুন দ্রুত ছড়াচ্ছে। আগুন নেভানো ও উদ্ধারের কাজে অসুবিধা হচ্ছে। সেখানে এখন এমন অবস্থা যে, কেবল সমুদ্রপথেই মানুষ অন্যত্র যেতে পারছেন। এক সরকারি কর্মকর্তা জানান, ‘আমরা এই রকম পরিস্থিতিতে আগে কখনো পড়িনি। আমাদের সব কর্মী মিলে আগুনের মোকাবিলা করার চেষ্টা করছেন।’ এভিয়াতে ৫৭০টি দমকল আগুন নেভানোর চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যেই পশ্চিম গ্রিসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করার সময় একটি বিমান ভেঙে পড়েছে। তবে পাইলট প্লেন থেকে বেরিয়ে আসতে পেরেছেন।

রাশিয়াতেও ভয়াবহ দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। দেশটির সারোভ শহরের কাছে একটি পরমাণু গবেষণা কেন্দ্রের কাছে দাবানল চলে এসেছে। সরকারি কর্মকর্তারা রীতিমতো উদ্বিগ্ন। সেখানে প্রচুর দমকল পাঠানো হয়েছে। রাশিয়াজুড়ে সাড়ে তিন লাখ হেক্টরের বনভূমিতে আগুন জ্বলছে। স্মরণকালের মধ্যে এত খারাপ অবস্থা রাশিয়ায় হয়নি। এএফপি