• বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:৪২ অপরাহ্ন

জমির ধান কাটা’কে কেন্দ্র করে হামলা নিহত-২, আহত-২০, আটক ৭

আল ইসলাম কায়েদ
আপডেটঃ : শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭

মো সোহরাব হোসেন রতন
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ধানকাটাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। এসময় নারীসহ আহত হয়েছেন অন্তত ৬ জন। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে মোরেলগঞ্জ উপজেলার পুঁটিখালি ইউনিয়নের পূর্ব সোনাখালি গ্রামে সিন্নি খালি ব্রিজের পার্শে এই হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় এ দিন দুপুরে ঘটনাস্থল  করেছেন। নিহতরা হলেন, মোরেলগঞ্জ উপজেলার পাতাবাড়িয়া গ্রামের তোরাব শেখের ছেলে ইব্রাহিম শেখ (৪৮) ও আমবাড়িয়া গ্রামের শাহজাহান শেখের ছেলে পলাশ শেখ (৩২)। নিহতরা রহিম খানের আতিœয় এবং মটর শ্রমিক।তবে স্থানীয় এক ইউপি সদস্য বলেন এটা সংঘর্ষ নয়, এটা একপক্ষের পরিকল্পিত ভাবে  হামলা  করেছেন। এই বিষয়ে কথা বলতে উভয়পক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাৎক্ষনিক ভাবে কেউ কে পাওয়া যায়নি। ঘটনায় আহতরা হলেন, কবির শেখ, মজিবর শেখ, হেমায়েত খান, জাহিদ শেখ, শিউলী ও নাজমা। এদের মধ্যে কবির শেখ ও মজিবর শেখ এ দুজনকে আশংকাজনক অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য চার জনকে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। । মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কামাল হোসেন মুফতি এই প্রতিনিধি কে বলেন, ইব্রাহিম শেখ ও পলাশ শেখকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এ দুজনের শরীরে ধারালো অস্ত্রের কোপ রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তাদের মৃত্যু হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার কওে ময়না তদন্তওে জন্য বাগেরহাট সদও হাসপাল মর্গে প্রেরণ করেছে ।অন্যদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ ধারনা করেছে সংঘর্ষের ঘটনা এক পক্ষের।হামলার ঘটনায় জড়িত থাকায় ৭জন কে আটক করেছে  পুলিশ, আটককৃতরা হলেন এই হামলার মুল হোতা শহীদুল খান(৪৫) মজিবর(৬০) ওহাব খান(৬৫) বারেক(৬২) ইব্রাহিম(২৭) নূরইসলাম ওআবু হানিফ এরা পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বিকার করেছে। মোরেলগঞ্জ উপজেলার পুঁটিখালি ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম খান এই প্রতিনিধি কে বলেন, সোনাখালি গ্রামের আব্দুর রহিম খানের সাথে একই বংশের ও প্রতিবেশি শহীদুল খানের এক বিঘা জমি নিয়ে দির্ঘ দিন বিরোধ রয়েছে। ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে চলতি আমন মৌসুমে রহিম খান আমনের চাষ করে। শুক্রবার সকাল আটটা নাগাদ প্রতিপক্ষ শহীদুল খান পরিকল্পিত ভাবে ১২/১৪ জন ভাড়াটিয়া শ্রমিক নিয়ে ধান কাটতে যায়। এসময় রহিম খানের আতœীয় স্বজন ধানকাটার খবর পেয়ে তাদের বাধা দিতে যায়। শহীদুলের লোকজন তাদের কাছে থাকা দেশিয় অস্ত্র দা, কুড়াল নিয়ে হামলা চালায়। এতে রহিম খানের দুই আতœীয়ের মৃত্যু হয়। আহত হয় অন্তত ৭/৮ জন। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।তিনি আরও বলেন এই জমির বিরোধ মেটাতে চলতি মাসে পুঁটিখালি ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহচান মিয়া শামীম দুই পক্ষকে নিয়ে বসতে চাইছিলেন।পুঁটিখালি ইউপি চেয়ারম্যান আরো বলেন, জমি নিয়ে রহিম ও শহীদুল খানের মধ্যে বিরোধ রয়েছে। এই বিরোধ নিয়ে বসার কথা ছিল। কিন্তু তারা কেন এবং কার উসকানিতে হামলায় লিপ্ত হয়েছে তা বুঝতে পারছিনা।এ ব্যাপারে বাগেরহাট পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ধানকাটাকে কেন্দ্র করে মোড়েল গঞ্জের সোনাখালিতে সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন তা পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে। তবে ঘটনার বিস্তারিত জানতে ঘটনাস্থলে যাচ্ছি, সেখানে না গিয়ে বলা যাবে না।

Share Button


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page