নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেছেন, ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের বিষয়টি গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে (আরপিও) অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত আছে নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। চলতি জাতীয় সংসদের পরবর্তী অধিবেশনে আরপিওর সংশোধনী প্রস্তাব সংসদে তোলার চেষ্টা থাকবে।
গতকাল রবিবার নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কবিতা খানম এ কথা বলেন। গত বছরের জুলাইয়ে নিজেদের কর্মপরিকল্পনায় ইসি ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারির মধ্যে আরপিওসহ প্রয়োজনীয় নির্বাচনী আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নেওয়ার কথা। কিন্তু তা হয়নি। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর বসছে জাতীয় সংসদের অধিবেশন। এই অধিবেশনটিই চলতি দশম সংসদের শেষ অধিবেশন হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।
গতকাল ইসির আইন ও বিধিমালা সংস্কার কমিটির প্রধান কবিতা খানম সাংবাদিকদের বলেন, আরপিও পর্যালোচনার মধ্যে আছে। কমিশনের কিছু পরামর্শ ও পর্যবেক্ষণ ছিল। তারা কাজ করছেন। দশম জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশনে সেটা তুলে ধরার চেষ্টা করবেন তারা।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের সম্ভাবনার বিষয়ে কবিতা খানম বলেন, জাতীয় সংসদে সব কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করতে হলে সক্ষমতা বাড়াতে হবে। শুধু যন্ত্র কিনলেই হবে না, যারা এর পেছনে থাকবে তাদের প্রশিক্ষিত করতে হবে। এ বিষয়ে কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে। উল্লেখ্য, স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন স্তরের নির্বাচনে বড় পরিসরে ইভিএম ব্যবহার করার জন্য লক্ষাধিক মেশিন ক্রয় করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে বেশকিছু ইভিএম ক্রয় করা হয়েছে। সম্ভবত আগামী জাতীয় নির্বাচনেও ইভিএম ব্যবহার করা হতে পারে।
Share Button