ষ্টাফ রিপোর্টার : সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক এ ওয়াই মশিউজ্জামানসহ সকল সদস্যদের ওপর হামলা, ফলাফল প্রকাশে বাধাদানকারী বহিরাগতদের শাস্তি প্রদান এবং অবিলম্বে আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণার দাবিতে বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে।
বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) সমিতির সভাপতির কক্ষের সামনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের উদ্যোগে আয়োজিত এ কর্মসূচিতে কয়েক শ’ আইনজীবী অংশ নিয়ে অবিলম্বে সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনের ফল ঘোষণার দাবি জানান।
অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে হাইকোর্ট বিভাগের সাবেক বিচারপতি ফয়সাল মাহমুদ ফয়েজী স্লোগান দেন, ভোট ডাকাতির রাজনীতি সুপ্রিম কোর্টে চলবে না। এসময় অন্য আইনজীবীরাও তার সাথে স্লোগান দেন।
আইনজীবী ফোরাম সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের সভাপতি আবদুল জব্বার ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক গাজী কামরুল ইসলাম সজলের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন। এতে অংশ নেন আইনজীবী আবদুল্লাাহ আল মামুন, মনির হোসেন, রফিকুল ইসলাম মেহেদী, মোহাম্মদ আলী, রাগিব রউফ চৌধুরী, কামরুজ্জামান মামুন, মো: আখতারুজ্জামান, শফিউল আলম, গাজী তৌহিদুল ইসলাম, মাহফুজ বিন ইউসুফ, কামাল হোসেন, মনিরুজ্জামান আসাদ, শরীফ ইউ আহমেদ, আবদুল্লাহ আল মাহবুব, মাসুদ রানা, মাজহারুল ইসলাম, ড. খন্দকার মাহবুব হোসেন, ইউনুছ আলী রবি, সগির হোসেন লিওন, নাসির উদ্দিন খান সম্রাট, আইয়ুব আলী আশরাফী, শেখ তাহসিন আলী, মার-ইয়াম খন্দকার, মু: কাইয়ুম প্রমুখ।
অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বক্তারা বলেন, এখানে জিয়ার সৈনিকরা আছে। সুপ্রিম কোর্টকে রাতের আঁধারের নির্বাচন মনে করবেন না। সুপ্রিম কোর্টে ভোট ডাকাতির রাজনীতি চলবে না। তারা অবিলম্বে গত ১৫-১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনের ফল প্রকাশের দাবি জানান।
ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, সুপ্রিম কোর্টের মর্যাদা রক্ষা করা সকল আইনজীবীর দায়িত্ব। কেউ বিএনপি, কেউ আওয়ামী লীগ বা অন্য দল করতে পারেন কিন্তু এটা আমাদের সকলের সমিতি। আজ নির্বাচন নিয়ে যা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টের ইতিহাসে তা ঘটেনি। নির্বাচনের ভোট গণনাকে কেন্দ্র করে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়কের গায়ে পানির বোতল মারে। আমি মনে করি, সুপ্রিম কোর্টের কোনো আইনজীবী এটা ঘটায়নি, এটা বহিরাগতরা ঘটিয়েছে। আজ আমি সকল আইনজীবীকে অনুরোধ করব, আসুন আমরা এই সমস্যার সমাধান করি।
ভোট ফ্রেশ কাউন্টিংয়ের দাবিতে আওয়ামী লীগ সমর্থক আইনজীবীদের বিক্ষোভ
সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের ভোট ফ্রেশ কাউন্টিংয়ের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশে করেছে আওয়ামী লীগ সমর্তক আইনজীবীরা। আজ সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের উদ্যোগে এই বিক্ষোভ-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
আইনজীবী তৌহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক মোমতাজ উদ্দিন মেহেদী, আবদুর নূর দুলাল, মিলন মেহেদী, মুজিবুর রহমান, মাহফুজুর রহমান লিখন, আজিজুল হক, নজরুল ইসলাম, আলী আহসান, এসআর সিদ্দিকী প্রমুখ।
অচলাবস্থা নিরসনে সাবেক সভাপতি-সম্পাদকদের দায়িত্ব দিয়েছে কার্যকরী কমিটি
সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২২-২৩ সালের নির্বাচনের ভোটগ্রহণের প্রায় দুই সপ্তাহ পার হলেও ফলাফল ঘোষণা না হওয়ায় অচলাবস্থা নিরসনে সমিতির সাবেক সভাপতি ও সম্পাদকদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় সুপ্রিম কোর্ট বারের কার্যকরী কমিটি কমিটির জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় নির্বাচনের ফল প্রকাশ নিয়ে জটিলতা নিরসনে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে বলা হয়, কার্যকরী কমিটি মনে করে, সমিতির নির্বাচন ২০২২-২৩ এর ফলাফল ঘোষণা সংক্রান্ত যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে সমিতির সাবেক সভাপতি ও সাবেক সম্পাদকগণ যৌথভাবে, সম্মিলিতভাবে বসে উদ্ভূত পরিস্থিতি উত্তোরণে ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবেন।
কার্যকরী কমিটির পক্ষ থেকে উক্ত পরিস্থিতি উত্তরণে সাবেক সভাপতি ও সম্পাদকগণকে যেকোনো কাজে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কার্যকরী কমিটি প্রত্যাশা করে, সমিতির সাবেক সভাপতি ও সম্পাদকগণ পরবর্তী সাত দিনের মধ্যে একত্রে বসে এই অবস্থা থেকে উত্তরণে কার্যকরী ভূমিকা গ্রহণ করবেন।
এতে আরো বলা হয়, সভায় এই মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সদস্য হিসেবে সকলের সম্মান এবং এই সমিতির মর্যাদা রক্ষায় সমস্যার আশু সমাধান বাঞ্ছনীয়। উদ্ভূত পরিস্থিতি নিরসনের জন্য কার্যকরী কমিটির সকল সদস্য একমত পোষণ করেন যে এই পরিস্থিতিতে অত্র সমিতির অভিভাবক হিসেবে সমিতির সাবেক সভাপতি ও সম্পাদকগণ এগিয়ে আসবেন।
সভায় সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: জালাল উদ্দিন, সহ-সভাপতি মুহাম্মদ শফিক উল্যা, সম্পাদক ব্যারিস্টার মো: রুহুল কুদ্দুস কাজলসহ সকল সদস্য অংশ নেন।

Share Button