• বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৩৩ অপরাহ্ন

চাকরিকে মহান দায়িত্ব হিসেবে গ্রহণ করুন : দূতদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

আল ইসলাম কায়েদ
আপডেটঃ : রবিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং হাইকমিশনারদের প্রতি তাদের কাজকে নিছক চাকরি হিসেবে না দেখে দেশ ও জাতির স্বার্থ রক্ষার এক মহান দায়িত্ব হিসেবে গ্রহণ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘বিদেশে আপনারা একেকজন একেকটি বাংলাদেশ। আপনাদের কাজ নিছক চাকুরি করা নয়, আরও অনেক বড় এবং মহান কিছু। দেশের ১৬ কোটি মানুষের হয়ে আপনারা সেখানে প্রতিনিধিত্ব করছেন।’ ৩০ লাখ শহীদ এবং ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন আপনারা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কাজেই দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সব সময় দেশের স্বার্থে আপনাদের কাজ করতে হবে।’
আজ রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে তিনদিন ব্যাপী দূত সম্মেলনের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, যেসব দেশে আমাদের অধিক সংখ্যক প্রবাসী রয়েছেন, সেসব দেশে তাঁদের প্রতি আলাদা নজর দিতে হবে। তারা যাতে কোনভাবেই হয়রানির শিকার না হন, তা নিশ্চিত করতে হবে। তাদের বিপদে-আপদে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে নিয়ে মাঝেমধ্যেই নেতিবাচক প্রচারণা হয়। উচ্চমানের পেশাদারিত্ব দিয়ে সেসবের মোকাবিলা করতে হবে। আর এজন্য নিজ দেশ, দেশের মানুষ সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে দায়িত্ব পালনরত রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার এবং স্থায়ী প্রতিনিধিদের নিয়ে প্রথমবারের মত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই দূত সম্মেলনের আয়োজন করেছে। বর্তমানের জটিল বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে আমাদের দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা কি হবে সে বিষয়ে মতবিনিময়ের জন্যই এই সম্মেলনের আয়োজন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে মন্ত্রী পরিষদ সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাগণ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রবাসী বাংলাদেশীদের বিষয়ে রাষ্ট্রদূতদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তারা আমার দেশের নাগরিক, তাদের ভালো মন্দ দেখা, তাদের সুযোগ- সুবিধা দেখা, অসুবিধাগুলো দূর করা-এটা কিন্তু আপনাদের কর্তব্য। ’
আমরা আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন বাংলাদেশ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছিলাম উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমরা সাফল্য অর্জন করায় সমগ্র বাংলাদেশ এখন ইন্টারনেট প্রযুক্তির আওতায় এসে গেছে। আমরা প্রতিবেশি দেশগুলোতেও আমাদের সাবমেরিন কেবল থেকে ব্যান্ডউইথ রপ্তানি করতে পারছি। আমরা সহসাই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করতে যাচ্ছি সেখান থেকেও নানা সুযোগ-সুবিধা আমরা পাশ্ববর্তী দেশে সরবরাহ করে এর সুবিধা নিতে পারবো বলে আশা করছি।
জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে তিনি আরো সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, যে সমস্ত দেশ এই ইস্যুতে আমাদের সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তাদের সেই বিষয়গুলোও দেখে সরকার। তবে, আমরা কারো মুখাপেক্ষী হয়ে থাকিনি ‘কপ-১৫’ এর পর আমরা দেশে এসে নিজস্ব বাজেটে ফান্ড তৈরি করে এটা মোকাবেলার উদ্যোগ নিয়েছি।
Share Button


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page