• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৬:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
নিউইয়র্কে সেইভ দ্য পিপল’র উদ্যোগে হালাল খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সেন্ট মার্টিনের নিরাপত্তা নিয়ে স্বার্থান্নেষী মহল গুজব ছড়াছে : আইএসপিআর মুসলিম বিশ্ব নিরানন্দে ঈদ উদযাপন করছে : এরদোয়ান ছেলে জয়ের নামে ছাগল কোরবানি দেবেন অপু, বুবলী দিচ্ছেন গরু ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পথে লঞ্চ আটকে দিলেন ম্যাজিষ্ট্রেট সোনাতলা পৌরসভায় ভিজিএফের এর চাল বিতরণ শেষ লগ্নে জমে উঠেছে কলকাতার পশুর হাট, কদর বেড়েছে দুম্বা ও খাসির প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় সেনাবাহিনী বিশ্ব-দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে : সেনা প্রধান বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়ে ১৯ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। সরকার বিদেশের ওপর নির্ভর করে ক্ষমতায় আছে : মির্জা ফখরুল

ঈদে নারীদের জুতা ডিজাইনে ভিন্নতা

নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : শুক্রবার, ২৯ মার্চ, ২০২৪

ঈদে পোশাকের সঙ্গে মানাবে, এমন জুতা-স্যান্ডেলের প্রতি বরাবরের মতো ঝোঁক থাকে ছেলে-মেয়ে উভয়ের। ক্রেতাদের আগ্রহ ও চাহিদার কথা মাথায় রেখে দোকানগুলো সাজানো হয়েছে হাল ফ্যাশনের জুতা ও স্যান্ডেলে।

প্রতিবারের মতো মেয়েদের ফ্যাশন আর পছন্দের দিকে লক্ষ্য রেখে অধিকাংশ জুতার ডিজাইনে আনা হয়েছে ভিন্নতা। মেয়েদের জুতার ক্ষেত্রে ক্ল্যাসিক ফ্যাশনের অংশ হিসেবে ফ্ল্যাট বা চটি স্যান্ডেল এখন ট্রেন্ডি। শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, টপস, জিনস বা স্কার্টের সঙ্গে এ ধরনের জুতা বেশ মানানসই।

রাজধানীর এক বিপণি বিতানে জুতা কিনতে আসা একজন বলেন, স্লিপারের মধ্যে কিছু পছন্দ করছি। কারণ, স্লিপার পরতে আরাম লাগে। আরেক নারী ক্রেতা বলেন, মেয়েদের জন্য রাফ ইউজের ক্ষেত্রে স্লিপার একটু কমফোর্টেবল হয়। যারা অফিস করে, তাদের জন্য স্লিপারই ঠিক আছে।

বেশির ভাগ কোম্পানি ক্রেতার রুচি ও চাহিদার দিকে খেয়াল রেখে হরেক রকম ডিজাইনের জুতা-স্যান্ডেল দিয়ে সাজিয়েছে শোরুম। যেখান থেকে রুচি ও পছন্দসই জুতা সহজেই কিনতে পারছেন সব বয়সী নারীরা। এক দোকানের বিক্রেতা বলছেন, পার্টিওয়্যার থেকে শুরু করে ঈদের জন্য ফেস্টিভ কালেকশনের এবার চাহিদা রয়েছে। আর কিছু জুতা রয়েছে, যেগুলো কমফোর্ট ও ফ্যাশনের দিকে লক্ষ্য রেখে আনা হয়েছে। এগুলো থেকে তারা ভালো সাড়া পাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

তবে যারা উচ্চতায় খানিকটা কম, তাদের জন্য রয়েছে হিল জুতা। ফ্যাশনের দিকে খেয়াল রেখে জুতার ব্র্যান্ডগুলো তৈরি করছে কাপড়ের জুতা। ছোট-বড় বুনন আর কাঁথার ফোঁড়ের সমন্বয়ে তৈরি জুতাগুলো বেশ দৃষ্টিনন্দন। উৎসবের কথা মাথায় রেখে জুতার রঙে রয়েছে বৈচিত্র্য।

জুতা কিনতে আসা আরেকজন বলেন, আমি একটু শর্ট। তাই হাই হিল পছন্দ করি। সেটার ক্ষেত্রে আমি বেসিক্যালি খেয়াল করি, একটু লাইট ওয়েট। আরেকজন বলেন, সব জায়গায় ঘুরতে যেতে হবে। হ্যাংআউট বা ফ্যামিলি প্রোগ্রামের কথা মাথায় রেখে সর্বদা কমফোর্টেবল জুতা প্রিফার করি।

আরেকজন ক্রেতার মুখে সন্তুষ্টির ছাপ দেখা গেছে। তিনি বলেন, এবার কালেকশনগুলো ভালো এসেছে। আমি ম্যারি ক্লেয়ারের জুতাগুলো স্পেশালি পছন্দ করেছি। আরেকজন বলেন, একটু সফিস্টিকেটেড কালারের জুতা খুঁজছি এবার।

এবার কালো বা চকলেট রঙের জুতার পরিবর্তে হালকা শাইনি বা অ্যান্টিক রঙের জুতা বেশি চলছে বলে জানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ