স্পোর্টস ডেস্ক : ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে বাংলাদেশের নারীদের জিততে হলে প্রয়োজন ছিল ২৩০ রান। সেখানে ১১৯ রানে থেমে গেল বাংলাদেশ। পুরো ৫০ ওভারও ব্যাটিং করতে পারেনি নারীরা। ৪০.৩ ওভারে শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।
২৩০ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশের ইনিংসে শুরুতেই আঘাত হানেন ভারতীয় বোলাররা। মাত্র ১২ রানে রাজেশ্বরী গায়কোয়াড় ফিরিয়ে দেন বাংলাদেশ ওপেনার শারনিম আখতারকে (৫)। এত রান তাড়া করে ম্যাচ জিততে হলে পার্টনারশিপ গড়তে হত। কিন্তু বাংলাদেশ সেই কাজটাই করতে পারেনি। হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ইনিংস।
ভারতীয় বোলারদের সামনে টিকে থাকতে পারেননি বাংলাদেশের কোনো ব্যাটার। একমাত্র লড়লেন সালমা খাতুন (৩২) ও লতা মণ্ডল (২৪)। ভারতীয় বোলারদের মধ্যে স্নেহ রানা চারটি উইকেট নেন।
এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২২৯ রান করে ভারত। সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেন রিতু মনি।
ব্যাট হাতে শুরুটা সাবধানে করেছিল ভারতের নারীরা। দ্বিতীয় ওভারে জাহানারা আলমের বলে স্মৃতি মান্ধানা দুটি চার মারলেও পরে একটু গুটিয়ে যান। বিধ্বংসী বলে পরিচিত শেফালি ভার্মা শুরুতে ১৩ বলে করেন ৪ রান। বাঁহাতি স্পিনার নাহিদা আক্তারের এক ওভারে ছক্কা ও চার মেরে হাত খোলেন শেফালি। ১৮ বছর বয়সী ব্যাটার পরের ওভারে জাহানারাকে মারেন তিনটি চার। ফর্মে থাকা স্মৃতিকে মনে হচ্ছিল, আরেকটি বড় ইনিংসের জন্য প্রস্তুত।
১৫তম ওভারের শেষ বলে বাংলাদেশ প্রথম উইকেটের দেখা পায়। নাহিদার একটি নিরীহ শর্ট বলে টাইমিং ঠিক করতে না পেরে ফারজানা হকের হাতে ক্যাচ দেন স্মৃতি। ৫১ বলে ৩০ রান করে বিদায় নেন তিনি।
উদ্বোধনী জুটি ভাঙতেই আরেকটি সাফল্য। এবার রিতু মনির বলে শেফালি স্টাম্পড হন ৪২ বলে ৪২ রান করে। পেসারের বলেও স্টাম্প ঘেঁষে কিপিং করতে থাকা নিগার দারুণ দক্ষতায় উড়িয়ে দের বেলস।
পরের বলেই আবার উল্লাসে ভাসেন রিতু। মেয়েদের ক্রিকেটের মহাতারকা এবং সাত হাজার ওয়ানডে রান করা একমাত্র ব্যাটার মিতালি রাজ প্রথম বলেই সহজ ক্যাচ দেন কাভারে। বিনা উইকেটে ৭৪ থেকে ভারতের রান তখন ৩ উইকেটে ৭৪।

স্বস্তিকা ভাটিয়া ও হারমানপ্রিত কৌরের ব্যাটে সেই ধাক্কা সামাল দেয়ার চেষ্টা করতে থাকে ভারত। সেই চেষ্টাও সফল হতে দেয়নি বাংলাদেশ। ফারজানা হকের দারুণ সরাসরি থ্রোয়ে অভিজ্ঞ হারমানপ্রিত ফেরেন ৩৩ বলে ১৪ রান করে। ১০৮ রানে ৪ উইকেট হারানো দলকে উদ্ধার করে স্বস্তিকা ও রিচা ঘোষের জুটি। পঞ্চম উইকেটে দুজনে যোগ করেন ৬৯ বলে ৫৪ রান।
রিচা ২৫ রানে নিগারের হাতে জীবন পেলেও ২৬ রানে ধরা পড়েন নিগারের হাতেই। স্বস্তিকা ফিফটি ছুঁয়েই রান বাড়ানোর চেষ্টায় আউট হয়ে যান রিতু মনির বলে। শর্ট ফাইন লেগে ভালো ক্যাচ নেন নাহিদা। ৮০ বলে ৫০ রান করেন স্বস্তিকা।
শেষ দিকে পুজা ভাস্ত্রাকার ও স্নেহ রানার ব্যাটে দ্রুত রান বাড়ায় ভারত। ৩৮ বলে ৪৮ রানের জুটি গড়েন দু’জন। ২৩ বলে ২৭ রান করে স্নেহ রানা আউট হন শেষ ওভারে। পুজা অপরাজিত থেকে যান ৩৩ বলে ৩০ রানে। শেষ ৫ ওভারে ভারত তোলে ৪৫ রান।
________________________________________

Share Button