• বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন

এক দশকের অভিনেত্রী

আল ইসলাম কায়েদ
আপডেটঃ : বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

উত্তরার একটি শুটিং স্পটে খুব মনোযোগ দিয়ে সেদিন স্ক্রিপ্ট পড়ছিলেন মম। এ স্ক্রিপ্ট পড়ার প্রসঙ্গ নিয়েই আড্ডা শুরু হল। স্ক্রিপ্ট প্রসঙ্গে তিনি বলেন ‘স্ক্রিপ্টটা সবসময়ই আমি মনোযোগ দিয়ে পড়ার চেষ্টা করি। যখন হাতে স্ক্রিপ্ট আসে তখন পড়ি, প্রস্তুতি নেই। আবার যখন সেটে আসি তখন ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর আগে ভালোভাবে পড়ে নিই। তাতে অভিনয় করাটা উপভোগ্য হয়ে ওঠে।’ ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই মম ক্যামেরার সামনে স্ক্রিপ্ট মুখস্থ করেই দাঁড়াতে অভ্যস্ত। অভিযোগ আছে, অনেকেই স্ক্রিপ্ট মুখস্থ না করেই সেটে যান। এই অভিযোগের মুখোমুখি হতে হয়নি মমকে কখনই পথচলার দশ বছরে। লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার হিসেবে মিডিয়াতে আগমন ঘটলেও অভিনয়ে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেই একজন গুণী অভিনেত্রীতে নিজেকে পরিণত করেছেন। অভিনয় জীবনের শুরুতেই তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ‘দারুচিনি দ্বীপ’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে অর্জন করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। কিন্তু তখন এই পুরস্কারপ্রাপ্তির আনন্দটা দারুণভাবে উপভোগ করতে পারেননি। এখন বয়স একটু বেড়েছে মম’র। পুরস্কারের মর্যাদাও উপলব্ধি করেন হৃদয় দিয়ে। তাই ইচ্ছা তার, এখন কোনো চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তিনি এই সম্মাননা অর্জন করতে পারেন। সেই আশায় ভালো ভালো কিছু চলচ্চিত্রে কাজও করছেন তিনি। চ্যালেঞ্জিং চরিত্রের গভীরে প্রবেশ করে অভিনয় করছেন আপন মনে। ঠিক তেমনই একটি চরিত্র আলতা। অরুন চৌধুরী পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘আলতাবানু’তে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি শেষ করেছেন তানিম রহমান অংশুর ‘স্বপ্নবাড়ি’ চলচ্চিত্রের কাজ। দুটি চলচ্চিত্রেও তার বিপরীতে আছেন আনিসুর রহমান মিলন। ‘আলতাবানু’ প্রসঙ্গে মম বলেন, “এটি এমন একটি চলচ্চিত্র যা দর্শক এক বসাতেই উপভোগ করবেন। সহজে বলতে গেলে বলা যায় এটি একটি ভালো চলচ্চিত্র। ‘স্বপ্নবাড়ি’ও ঠিক তাই। দুটি চলচ্চিত্র নিয়ে আমি ভীষণরকম আশাবাদী। চেষ্টা করেছি আমার চরিত্র যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে।” অভিনয়ের পথচলায় দীর্ঘ এক দশক পূর্ণ করেছেন। এ পথচলায় অর্জন কী? এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘দর্শকের চোখে আমার জন্য আমি যে ভালোবাসা দেখেছি, যে সম্মান দেখেছি এর চেয়ে বড় অর্জন, প্রাপ্তি আর কিছুই হতে পারে না। এটাই এই জীবনের বড় সার্থকতা। এভাবে আমি আরও বহু বছর কাজ করে যেতে চাই দর্শকের ভালোবাসা নিয়েই।’ ব্যক্তি জীবন প্রসঙ্গে মম বলেন, ‘ব্যক্তি জীবনই তো নেই আমার। সকালে ঘুম থেকে উঠে শুটিংয়ে যাই, শুটিং শেষে বাসা ফিরে ঘুমিয়ে পড়ি। অভিনয় জীবনটাই আমি দারুণভাবে উপভোগ করছি। এর বাইরে আমি অতি সাধারণ একজন মানুষ। একজন সাধারণ বাঙালি মেয়ে আমি। খুব সাদামাটা জীবন আমার।’

Share Button


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page