• সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

মিয়ানমারের ২০ কোটি ডলারের ঋণ স্থগিত করল বিশ্বব্যাংক

আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭

রাখাইনে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মানুষের ওপর জাতিগত নিধনের প্রেক্ষাপটে মিয়ানমারের ২০ কোটি ডলারের ঋণ স্থগিত করেছে বিশ্বব্যাংক। রাখাইন পরিস্থিতি বিশ্লেষণের পর রেহিঙ্গা ইস্যুতে উদ্বেগ জানিয়ে শুক্রবার ওয়াশিংটনে এক বিবৃতিতে এসব জানায় বিশ্বের এই শীর্ষ ঋণদাতা সংস্থা। উন্নয়ন সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের প্ল্যাটফর্মভিত্তিক ডেভেক্স এর ওয়েবসাইটে বিশ্বব্যাংকের বিবৃতির বরাত দিয়ে ঋণ স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।
বিবৃতিতে বিশ্বব্যাংক জানায়, ‘স¤প্রতি মিয়ানমারের জন্য অনুমোদিত উন্নয়ন সংক্রান্ত ঋণের সবশেষ পরিস্থিতি আমরা বিশ্লেষণ করে দেখেছি। সার্বিক বিচারে আমাদের মনে হয়েছে, ওই ঋণের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিতে সেখানকার পরিস্থিতির আরও উন্নতি হওয়া দরকার।’
২৫ আগস্ট সহিংসতার পর মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর নিধন শুরু করে দেশটির সামরিক বাহিনী। সেনাবাহিনীর হত্যা ও ধর্ষণ থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে পাঁচ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। তাদের কাছ থেকে জানা যায় সরকারি বাহিনীর নির্যাতনের ভয়াবহ চিত্র। যারা পালিয়ে আসতে পারেনি তারাও রয়েছেন ভয়াবহ দুর্দশায়। রাখাইনে কোনও আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থাকেও প্রবেশ করতে দিচ্ছে না মিয়ানমার সরকার। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম উঠে আসছে সেই মানবিক বিপর্যয়ের গল্প।
বিশ্বব্যাংকের সেই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘বৈষম্যহীনতা, সামাজিক অন্তর্ভুক্তি এবং সবার জন্য অর্থনৈতিক সুযোগের মৌলিক নীতির জন্য একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে, আমরা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর সহিংসতা, রাখাইনের ধ্বংসযজ্ঞ এবং তাদের উচ্ছেদ নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।’
বিবৃতিতে বলা হয়, জাতিসংঘ এবং বৃহত্তর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে বিশ্বব্যাংক। মিয়ানমার সরকারকে তারা পরিস্থিতি সংকট উত্তরণ এবং এবং মানবিক আর্তির প্রতি দৃষ্টি দিয়ে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেওযার আহŸান জানিয়েছে। রোহিঙ্গা পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য বাংলাদেশ বিশ্বব্যাংককে অনুরোধ করেছে। বিশ্ব আর্থিক সংস্থাটি ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। সূত্র : ওয়েবসাইট।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ