• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১১:০৬ অপরাহ্ন

দাফনের ১০৭ দিন পর ময়না তদন্তে গৃহবধুর লাশ উত্তোলন

আপডেটঃ : সোমবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৭

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি॥
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় গৃহবধু ফাতেমা বেগমের (৫৩) মরদেহ দাফনের ১শ ৭ দিন পর ময়না তদন্তের জন্য আজ সোমবার কবর থেকে তোলা হয়েছে। উল্লাপাড়া উপজেলার অলিপুর সীমাবাড়ি গ্রামের কবরস্থান থেকে সিরাজগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ ওবায়দুল্লাহ’র উপস্থিতিতে উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশ এ লাশ তুলে ময়না তদন্তে সিরাজগঞ্জ পাঠিয়েছে। জানা গেছে, অলিপুর গ্রামের শিক্ষক ওসমান গনির স্ত্রী ফাতেমা বেগম চলতি বছরের ১২ জুন রাতে তার শোবার ঘরে অগ্নিকান্ডে মারা যায়। সে ঘটনার রাতে একাই ঘরে ঘুমিয়ে ছিল বলে জানা যায়। এরপর পরেরদিন গ্রামের লোকজন ও তার আতœীয় স্বজনেরা বিদ্যুতের শটসার্কিটে ফাতেমা বেগম  মারা গেছে এমন ধারণায় ময়না তদন্ত ছাড়াই তার লাশ গ্রামের কবরস্থানে দাফন করে। এদিকে ঘটনার ৯ দিন পর ২০ জুন ফাতেমা বেগমের বড় ছেলে আহম্মেদ উল্লাহ বাদী হয়ে সিরাজগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে ৬ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। এ মামলার আসামীরা হলো একই গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে আমজাদ হোসেন (৪৫) ও নুরুল ইসলাম (৫০), আমজাদ হোসেনের ছেলে আব্দুল মমিন (২৫) ও আশরাফুল ইসলাম (২২), নুরুল ইসলামের ছেলে শাহাদত হোসেন (২৫) ও নুরুল ইসলামের স্ত্রী শাহানা খাতুন (৪০)। এ মামলায় বাদী আহম্মেদ উল্লাহ অভিযোগ করে, ঘটনার দিন ঘরটি আগুনে পুড়ে যাওয়ায় তারা বিষয়টি বিদ্যুতের শটসার্কিট মনে করেছিল। পরে ঘর সরানোর পর দেখা যায় ঘরের ডোয়ায় সিঁধ (গর্ত) কাটা রয়েছে। এতে তারা বুঝতে পারে আসামীরা পরিকল্পিতভাবে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে আগুন ধরিয়ে দিয়ে সিঁধ দিয়ে পালিয়ে যায়। আসামীদের সঙ্গে আহম্মোদ উল্লাহ’র বাবার জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ছিল। এ বিরোধের জের ধরেই তারা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে ধারণা হয়েছে।
আজ সোমবার কবর থেকে লাশ তোলার সময় সেখানে উপস্থিত থাকা মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা উল্লাপাড়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মোস্তফা স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদেরকে জানান, এ মামলার প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে লাশ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হলো। এ লাশ উত্তোলনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ ওবায়দুল্লাহ জানান, আহম্মেদ উল্লাহ’র মামলার প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে ফাতেমা বেগমের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। লাশ উত্তোলনের সময় কবরস্থানে উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. কে.এম মুস্তাফিজুর রহমান, উল্লাপাড়া থানার উপ-পরিদর্শক মহসিন আলী, ইব্রাহিম হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ