• বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০২:৪৩ অপরাহ্ন

পরাজিত নারী প্রার্থীর পরিবারের হামলায় ইউপি সদস্য দম্পতি রক্তাক্ত জখম

আপডেটঃ : শনিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০১৮

মো সোহরাব হেসেন রতন (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥
আসনের ইউপি সদস্য ও তার স্বামী সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের হামলায় রক্তাক্ত জখম হয়েছেন। তাদের উদ্ধার করে বাগেরহাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে বাগেরহাট সদর উপজেলার ষাটগম্বুজ ইউনিয়নের সদুল্ল্যাপুর গ্রামের সুজনের চায়ের দোকানের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার প্রতিবাদের বাগেরহাট জেলা সেচ্ছাসেবক লীগ বিক্ষোভ মিছিল করে জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছে। তবে পুলিশ হামলায় জড়িতদের এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি।আহতরা হলেন, বাগেরহাট সদর উপজেলার ষাটগম্বুজ ইউনিয়ন পরিষদের ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য দিলরুবা খানম (৪৯) এবং তার স্বামী ষাটগম্বুজ ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক সাবেক সেনাবাহিনীর সদস্য শেখ দেলোয়ার হোসেন (৫৪)।হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইউপি সদস্য দিলরুবা খানম শনিবার সকালে সাংবাদিকদের বলেন, শুক্রবার রাতে স্থানীয় পোলেরহাট বাজারে কাজ সেরে স্বামীর সাথে বাড়ি ফিরছিলাম। বাড়ির কাছে সদুল্ল্যাপুর গ্রামের সুজনের চায়ের দোকানের কাছে পৌছলে আগের দাঁড়িয়ে থাকা আমার নির্বাচনী পরাজিত প্রতিপক্ষ খাদিজা বেগম তার স্বামী ও ছেলে মিলে আমার স্বামীর চোখের উপর টর্চ লাইট জে¦লে রাখে। আমার স্বামী তাদের লাইট নেভাতে বললে তারা ক্ষুব্দ হয়ে আমাদের গালিগালাজ শুরু করে। এক পর্যায়ে তারা লোহার রড় ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আমাদের এলোপাথাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে চলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন আমাদের উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। গত নির্বাচনে পরাজয়ের পর থেকে আমার প্রতিপক্ষ খাদিজা আমার উপর ক্ষুব্দ ছিলেন। তারই জেরে এই হামলা হয়েছে বলে তিনি দাবি করেছেন।বাগেরহাট সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মশিউর রহমান বলেন, দিলরুবা খানম ও তার স্বামী দেলোয়ার হোসেনের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারলো অস্ত্র ও লোহার রডের আঘাতের চি‎হ্ন রয়েছে। তাদের বেশ রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। দু’জনই আশংকামুক্ত।ষাটগম্বুজ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ আকতারুজ্জামান বাচ্চু বলেন, আমার পরিষদের সংরক্ষিত ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের মহিলা আসনের সদস্য দিলরুবা খানম ও তার স্বামী দেলোয়ার হোসেনের উপর হামলা হয়েছে। হামলা ঘটনায় নিন্দা জানাচ্ছি সেই সাথে ওই হামলার ঘটনায় যারা জড়িত তাদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।বিষয়টি জানতে হামলার অভিযোগ ওঠা পরাজিত প্রার্থী খাদিজা বেগমের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।বাগেরহাট জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল বলেন,  ষাটগম্বুজ ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক সাবেক সেনা বাহিনীর সদস্য শেখ দেলোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী ইউপি সদস্য দিলরুবা খানমের উপর হামলার সংবাদ পেয়ে রাতেই দলের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে শহরে একটি বিক্ষোভ মিছিল করেছে। যারা আমার দলের নেতার উপর হামলা চালিয়েছে তাদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করার দাবি জানাচ্ছি।বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন বলেন, নারী ইউপি সদস্য দিলরুবা খানম ও তার স্বামী সাবেক সেনা বাহিনীর সদস্য দেলোয়ার হোসেনের উপর হামলায় জড়িতরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় এখনো তাদের ধরা যায়নি। তাদের ধরতে পুলিশ চেষ্টা করছে। তবে থানায় এখনো  কোন মামলা হয়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ