• বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০১:০০ পূর্বাহ্ন

আগামী কাল থেকে পৌর নাগরিক সেবার দ্বার খুলছে

আপডেটঃ : সোমবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০১৮

বাগেরহাট প্রতিনিধি॥
স্থানীয় সরকার পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের অধীন সকল দপ্তর-পরিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা’ই শুধু রাষ্ট্রের কাজে নিয়োজিত, তাই রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে তারা সব সুবিধা পায়। সংবিধানের ৫৯(৯) অনুযায়ী নাগরিক সেবা সহ সকল উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকারকে সহযোগীতা করে আসছি তবু কেন রাজস্ব খাত থেকে সুবিধা বঞ্চিত হই।
আমরা পাবলিক সার্ভেন্ট বলে মাসের পর মাস আমাদের বেতন বন্ধো থাকে। আর এ কারণে মানবেতর জীবন-যাপন করতে। গন প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধানের ৫৯(১)এর আইন ২০০৯ অনুযায়ী যদি সকল পৌরসভা সরকারের প্রসাশনিক অংশ হয়ে থাকে তা হলে আমরা ও  রাজস্ব খাত থেকে সুযোগ-সুবিধা পাবার দাবিদার বলেছে আন্দোলন রত বক্তারা।
গত রোববার সকালে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাগেরহাট শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পৌরসভা কর্মকর্তা কর্মচারি এসোসিয়েশনের নেতারা জড়ো হয়ে তারা এই কর্মসূচি পালন করছে। তাদের এই কর্মসূচি চলবে আগামী ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত ।
লক্ষাধিক মানুষের সেবা ও উন্নয়নমূলকসহ সব ধরনের কাজ বন্ধ রেখে বাগেরহাট পৌরসভার প্রায় অর্ধশতাধিক কর্মকর্তা কর্মচারী তারা এই আন্দোলন করছে। ফলে বাগেরহাট পৌরসভার নাগরিকরা নানা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।
আমাদের আগামী কাল থেকে সারা দেশে পৌর নাগরিক সেবা দ্বার খুলছে বলে জানিয়েছে বাগেরহাট পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারি এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম। গত রবিবার থেকে শুরু হওয়া ৩ দিনের কর্ম-বিরতীর কর্মসূচীর ২য় দিনে বাগেরহাট শহীদ মিনার বেদীতে  তার বক্তব্যে একথা বলেন।
এ ছাড়াকর্মসূচিতে বক্তব্য দেন পৌরসভা কর্মকর্তা কর্মচারি এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা রঞ্জন কান্তি গুহ, বাগেরহাট জেলা শাখার সভাপতি অজিত কুমার হালদার ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম প্রমূখ।
তারা বলছেন, স্থানীয় সরকারের প্রতিষ্ঠান পৌরসভার সকল কর্মচারির বেতন ভাতাসহ সকল পাওনা রাজস্বখাত থেকে পরিশোধ করা হয়ে থাকে। অনেক পৌরসভা তাদের বেতন ভাতা সময়মত পরিশোধ করতে পারেন না। এজন্য আমাদের অনেক সময় পরিবার নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে থাকতে হয়। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারি হয়ে আমরা সব সময় বৈষম্যের শিকার হয়ে আসছি। তাই অবিলম্বে আমাদের দাবি মেনে নিতে সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি। সরকার আমাদের দাবি মেনে না নিলে আমরা সামনে আরও কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করতে বাধ্য হব বলে হুশিয়ার করেন আন্দোলনে আসা নেতারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ