• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৮:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত বায়তুল মোকাররম মসজিদে আজ পবিত্র ঈদুল আজহা নিউইয়র্কে সেইভ দ্য পিপল’র উদ্যোগে হালাল খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সেন্ট মার্টিনের নিরাপত্তা নিয়ে স্বার্থান্নেষী মহল গুজব ছড়াছে : আইএসপিআর মুসলিম বিশ্ব নিরানন্দে ঈদ উদযাপন করছে : এরদোয়ান ছেলে জয়ের নামে ছাগল কোরবানি দেবেন অপু, বুবলী দিচ্ছেন গরু ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পথে লঞ্চ আটকে দিলেন ম্যাজিষ্ট্রেট সোনাতলা পৌরসভায় ভিজিএফের এর চাল বিতরণ শেষ লগ্নে জমে উঠেছে কলকাতার পশুর হাট, কদর বেড়েছে দুম্বা ও খাসির প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় সেনাবাহিনী বিশ্ব-দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে : সেনা প্রধান

ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করতে পারেন না?

নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : শনিবার, ৮ জুন, ২০২৪

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর জানা সত্ত্বেও অনেকে অভ্যাস ত্যাগ করতে পারেন না। কাজটা যতটা ভাবা সহজ, ঠিক ততটাই চ্যালেঞ্জিং।

প্রতিদিন একাধিক সিগারেট সেবনে শরীরে তৈরি হচ্ছে নানা জটিলতা। ফুসফুস তো বটেই, সঙ্গে শরীরের অন্যান্য অঙ্গের ওপরও খারাপ প্রভাব পড়ছে।
ধূমপানে ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, স্ট্রোক বা অন্যান্য স্বাস্থ্যগত পরিস্থিতির ঝুঁকি অনেকটাই বেড়ে যায়। অনেকে ধূমপান ত্যাগ করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। কারণ নিকোটিন এবং তামাক জাতীয় দ্রব্যে অত্যন্ত আসক্তি হতে পারে বলে অভ্যাস ত্যাগ করা মানুষের পক্ষে খুব কঠিন। সবচেয়ে বেশি কষ্টের হলো উইথড্রয়াল সিনড্রোম।

এতে অনেকখানি শারীরিক এবং মানসিক কষ্টের মধ্য দিয়ে যান ধূমপানে আসক্ত ব্যক্তিটি। তবে মানুষের কাছে আসাধ্য কিছু নেই। সব অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলতে পারে মানুষ। তবে কিছু টিপস আছে যা ফলো করলে ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করা সম্ভব।

ধূমপানের কারণে শরীরে তৈরি হয় নিকোটিনের ওপরে নির্ভরশীলতা। আর তাই ধূমপান হঠাৎ করে ছেড়ে দিলে শরীর নিকোটিন থেকে বঞ্চিত হয় এবং দেখা যায় বিভিন্ন লক্ষণ। শরীরে যদি অন্য কোনো উপায়ে নিকোটিনের সরবরাহ দেওয়া যায় তবে ধূমপানের ওপরে নির্ভরশীলতা কমে আসে। এর জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে নিকোটিন প্যাচ বা নিকোটিন চুইং গাম।

নিরোটিন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি ধূমপানের অভ্যাস দূর করতে সাহায্য করে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ড্রাগ এবিউজের মতে, এনআরটি বা নিকোটিন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি ধূমপান ছাড়ার চেষ্টা করার সময় প্রত্যাহারের লক্ষণগুলো পরিচালনা করতে সহায়তা করে। নিকোটিন প্রতিস্থাপন থেরাপি অন্যান্য বিষাক্ত পণ্য ছাড়াই ন্যূনতম পরিমাণ নিকোটিন প্রদান করে। টিংলিং, বমি বমি ভাব, মেজাজের পরিবর্তন, ঘনত্বের অভাব ইত্যাদি উপসর্গগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

সিগারেট খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করার জন্য আপনার যাত্রা আপনার রুচিবোধ এবং আপনার ক্ষুধাকেও প্রভাবিত করতে পারে। আপনার জীবনযাত্রায় এই বিশাল পরিবর্তনের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হলো, আপনাকে অতিরিক্ত খাবার খেয়ে ক্ষুধা মেটাতে হবে না। পাবমেডের মতে, ধূমপানের ফলে ভিটামিন সি শরীরকে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস মোকাবেলা করতে সাহায্য করে। অন্যদিকে, ভিটামিন ‘বি’ স্ট্রেস বিরোধী হরমোনের বৃদ্ধিকে উন্নীত করতে পারে।

ধূমপানের অভ্যাস দূর করতে আকুপাংচারের সাহায্য নিতে পারেন। ইউএস এনআইএইচ-এর মতে, আকুপাংচার ধূমপান ছাড়ার চেষ্টা করা লোকেদেরও সাহায্য করতে পারে। আকুপাংচার আপনাকে স্ট্রেস-হরমোন প্রতিক্রিয়া উপশম করতে, নিকোটিনের আসক্তি কমাতে এবং এন্ডোমরফিন নামক অনুভূতি-ভালো হরমোন নিঃসরণে সহায়তা করে।

ধূমপান ত্যাগ করা একটি চ্যালেঞ্জিং কাজ। আপনার বন্ধু এবং পরিবারের কাছ থেকে সাহায্য চাইতে দ্বিধা করবেন না। আপনি যদি আপনার বন্ধুদের ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানান, তাহলে তারা আপনাকে সাহায্য করতে পারে এবং আপনার কাজের জন্য আপনাকে দায়বদ্ধ রাখতে পারে। থেরাপিস্ট এবং ডাক্তার এবং এমনকি অনলাইন সহায়তা গোষ্ঠীগুলো একজন ধূমপায়ী থেকে একজন অধূমপায়ী পর্যন্ত আপনার যাত্রাকে সহজ করতে সাহায্য করতে পারে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ