• বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:০৯ অপরাহ্ন

আমদানি-রপ্তানিকালে প্রয়োজন হবে ‘ভ্যাট সম্মাননা কার্ড’

আল ইসলাম কায়েদ
আপডেটঃ : বুধবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৭

ইনকাম ট্যাক্স কার্ড নামে করদাতাদের সম্মাননার পর এবার ভ্যাট অনার কার্ড (ভ্যাট সম্মাননা পত্র) দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এক অর্থবছরে প্রতিমাসে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলকারী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে এ সম্মাননা দেওয়া হবে। দেশে প্রায় সাড়ে আটলাখ ভ্যাট নিবন্ধনকারী প্রতিষ্ঠান থাকলেও প্রতিমাসে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলকারী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৩৬ হাজার ৮শ’। এসব প্রতিষ্ঠান পাচ্ছে এ সম্মাননা। আগামী রবিবার জাতীয় ভ্যাট দিবসের অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকভাবে এ সম্মাননা কার্ড প্রদান করা হবে। ভ্যাট সম্মাননা কার্ডধারীদের আইনি ও সামাজিকভাবে বিভিন্ন সুবিধা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে এনবিআর। একই সঙ্গে আমদানি-রপ্তানিসহ বিভিন্ন ব্যবসায়িক কার্যক্রম সম্পন্ন করতে এ কার্ড প্রয়োজন হবে। অর্থাত্ এ কার্ড না থাকলে আমদানি-রপ্তানি করা যাবেনা। এর আইনি ভিত্তি তৈরি করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগও নিয়েছে এনবিআর। যদিও কবে থেকে এর কার্যকারিতা শুরু হবে, তা এখনো ঠিক করেনি এনবিআর।

 

এনবিআর সূত্র জানিয়েছে, এই কার্ডধারীদের হাসপাতালে সেবা প্রাপ্তি, বিমানবন্দর ও রেলপথ ভ্রমণের অগ্রাধিকার ছাড়াও নির্ধারিত সুপারশপ, হোটেল-রেস্টুরেন্ট, বিভিন্ন ব্র্যান্ডেড প্রতিষ্ঠানে কেনাকাটায় ছাড়  (ডিসকাউন্ট) পাওয়ার মত বিভিন্ন সুবিধা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে এনবিআর। এ লক্ষ্যে দেশের বড় বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনাও চলছে।

 

ট্যাক্স আইডি কার্ডের মতই হবে ভ্যাট সম্মাননাপত্র। তবে এর সব তথ্য যুক্ত থাকবে এনবিআরের অনলাইন তথ্যভাণ্ডারে। এনবিআরের ভ্যাট বিভাগের একজন ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা ইত্তেফাককে বলেন, আমদানি-রপ্তানিসহ বিভিন্ন ধরণের ব্যবসায়িক কার্যক্রমে এ কার্ড প্রয়োজন হবে। অন্যথায় আমদানি রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাবে। তবে এই বাধ্যবাধকতা কবে থেকে কার্যকর হবে, তা এখনো ঠিক হয়নি। তিনি বলেন, এক অর্থবছরে ১২টি রিটার্ন দাখিলকারী এরকম ৩৬ হাজার ৮শ’ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এ বছর এ প্রতিষ্ঠানগুলোকে ভ্যাট সম্মাননা কার্ড  দেওয়া হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু কার্ড দেওয়া হবে। বাদবাকী কার্ড দেশব্যাপী বিভিন্ন ভ্যাট অফিসের মাধ্যমে দেওয়া হবে।

 

২০১১ সালে ভ্যাট সম্মাননা কার্ডের ধারণার প্রবর্তন করে এনবিআর। এর পর ১৯৯১ সালের বিদ্যমান আইনে এ বিষয়ে একটি ধারা যুক্ত করা হয়। তবে এটি প্রদানের প্রক্রিয়া, কিংবা সুবিধা বা অসুবিধা ঠিক করতে একটি বিধি প্রণয়ন করা হবে। এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান ইত্তেফাককে বলেন, করদাতাদের আয়কর ও ভ্যাট প্রদানে উদ্বুদ্ধ করতে এনবিআরের বিভিন্ন উদ্ভাবনী কাজের অংশ হিসেবেই ভ্যাট অনার কার্ড ব্যবস্থা প্রবর্তন করা হয়েছে। এর ফলে আরো বেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিয়মিত ভ্যাট রিটার্ন দাখিলে এগিয়ে আসবে। ইনকাম ট্যাক্স কার্ডের মত ভ্যাট অনার কার্ডও ব্যবসায়ীদের মধ্যে সাড়া ফেলবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
Share Button


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page