• শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৪:৫০ পূর্বাহ্ন

মূলধন গঠনে আর্থিক সংকট এড়াতে বাংলাদেশে অর্থায়ন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী, ২০১৮

এসএসসি পরীক্ষা:২০১৮

ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং

নির্মল ইন্দু সরকার, প্রভাষক

সেন্ট গ্রেগরী হাই স্কুল এন্ড কলেজ ঢাকা

নিচের উদ্দীপকটি পড়ো এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও:

জনাব শাহিনের ঢাকার নীলখেতে একটি বইয়ের দোকান রয়েছে। তিনি প্রতিদিনের বিক্রয়লব্ধ অর্থ ব্যাংকে জমা রাখেন। এক্ষেত্রে তাকে দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় ব্যয় নির্বাহে সমস্যায় পড়তে হয়। এছাড়া জনাব শাহিনের দোকানের তুলনায় তার পাশের দোকানে ক্রেতার সমাগম বেশি। সে কারণে তার দোকানে বিক্রয় হ্রাস পাওয়ায় প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জন সম্ভব হচ্ছে না।

ক. অর্থায়ন তহবিল কী নিয়ে কাজ করে?   ০১

খ. অর্থায়ন কত প্রকার ও কী কী?         ০২

গ. জনাব শাহিন তার দোকানের ব্যয় নির্বাহের সমস্যা কীভাবে সমাধান করতে পারেন? ব্যাখ্যা কর।                                ০৩
ঘ. জনাব শাহিনের প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জনের ক্ষেত্রে কি করা উচিত বলে তুমি মনে কর? তা বিশ্লেষণ কর।                         ০৪

উত্তর:

ক. অর্থায়ন তহবিল ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করে।

খ.অর্থায়ন ৬ প্রকার। যথা- (১) পারিবারিক অর্থায়ন, (২) সরকারি অর্থায়ন, (৩) আন্তর্জাতিক অর্থায়ন, (৪) অব্যবসায়ী অর্থায়ন, (৫) ব্যবসায়ী অর্থায়ন ও (৬) ব্যাংক ও আর্ির্থক প্রতিষ্ঠানের অর্থায়ন।

 

গ. জনাব শাহীন তার দোকানের ব্যয় নির্বাহের সমস্যা তারল্য বনাম মুনাফানীতি অনুসরণের মাধ্যমে সমাধান করতে পারেন।

সাধারণত নগদ অর্থ ও মুনাফা মধ্যে বিপরীত সর্ম্পক বিদ্যমান থাকে। নগদ অর্থ বেশি রাখলে মুনাফা কমে যায়। আবার মুনাফা বৃদ্ধির উদ্দেশ্য বেশি বিনিয়োগ করা হলে তারল্য ঘাটতি দেখা দেয়। উদ্দীপকের শাহীন ঢাকার নীলখেত বইয়ের ব্যবসায় করেন। তিনি প্রতিদিনের বিক্রয়লব্ধ অর্থ ব্যাংক থেকে সুদ প্রাপ্তির আশায় ব্যাংকে জমা রাখেন। এর ফলে তা প্রতিষ্ঠানটি দৈনন্দিন ব্যয় মেটাতে অক্ষম হয়ে পড়েছে; যা তার ব্যবসায়ের অস্তিত্বের জন্য হুমকিস্বরূপ। তিনি যদি কিছু টাকা ব্যাংকে জমিয়ে রেখে ব্যয় নির্বাহের প্রয়োজনীয় টাকা ব্যবসায়ে রাখতেন তাহলে তাকে এরূপ ব্যবসায়ি ঝুঁকির সম্মুখীন হতে হতো না। এ অবস্থায় সমস্যা সমাধানের জন্য শাহীনকে স্বল্পমেয়াদি ঋণ গ্রহণ করতে হবে এবং ভবিষ্যতে যথাযথভাবে তারল্য ও মুনাফানীতি অনুসরণ করতে হবে।

ঘ. জনাব শাহীনের ব্যবসায়ে প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জন করতে হলে আর্থিক কতিপয় নীতিমালা অনুসরণ করা উচিত বলে আমি মনে করি। যেকোনো ব্যবসায়ে সফলতার পূর্বশর্ত হিসেবে কতিপয় নীতিমালা কাজ করে। এসব নীতিমালার মধ্যে তারল্য বনাম মুনাফানীতি উপযুক্ততার নীতি এবং ব্যবসায়ের বৈচিত্র্যময় ও ঝুঁকি বণ্টন নীতি অন্যতম। উদ্দীপকে শাহীন ঢাকার নীলখেতে বইয়ের ব্যবসায় করেন। তিনি প্রতিদিনের বিক্রয়লব্ধ অর্থ ব্যাংকে জমা করেন। যার ফলে তার ব্যয়সায়ে দৈনন্দিন খরচ মেটানোর তারল্য সংকট দেখা দেয়। আবার তার পাশের দোকানে একাধিক পণ্য থাকায় ক্রেতারা বিভিন্ন বিকল্প পণ্য থেকে পছন্দের পণ্যটি ক্রয়ের উদ্দেশ্য পাশের দোকানে ভিড় জমাচ্ছে। এ অবস্থায় তা ব্যবসায় থেকে প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জন করতে হলে তারল্য বনাম মুনাফা নীতি এবং ব্যবসায়ের বৈচিত্র্যময় ঝুঁকি বণ্টন নীতি অনুসরণ করা উচিত বলে আমি মনে করি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ