• সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

সঙ্কট সমাধানে সেনাবাহিনীর প্রতি টিলারসনের আহ্বান

আপডেটঃ : শনিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০১৭

মিয়ানমারকে অস্ত্র না দিতে ইসরাইলের প্রতি আহ্বান রাব্বিদের

রোহিঙ্গাদের উপর চালানো নিধনযজ্ঞে উদ্বেগ প্রকাশ করে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন এই সংকট সমাধানে সরকারকে সহায়তার জন্য সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বানন জানান। গতকাল শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র সময় বৃহস্পতিবার রেক্স টিলারসন ও মিন অংয়ের মধ্যে টেলিফোনে আলাপ হয়। রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর মিয়ানমার সেনার নির্যাতনকে আনুানিকভাবে জাতিগত নিধন বলে ঘোষণা করার কথা বিবেচনা করছে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর। তার আগে মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বললেন টিলারসন। গত ২৫ আগস্ট রাখাইন প্রদেশে সহিংসতার পর রোহিঙ্গাদের উপর নিধনযজ্ঞ শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা ও ধর্ষণ থেকে বাঁচতে পালিয়ে যায় ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গারা যেন দেশে ফিরে আসতে পারে সেই ব্যবস্থা নেয়ার জন্য মিন অংকে আহ্বান জানানো হয়েছে বলেও জানানো হয় বিবৃতিতে। এতে বলা হয়, সঙ্কট সমাধান ও পালিয়ে যাওয়াদের ফিরিয়ে আনতে মিয়ানমার সরকারকে সাহায্য করার আহ্বান জানিয়েছে টিলারসন। একইসঙ্গে রাখাইন অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের সহায়তা পৌঁছানোর জন্য আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থাগুলোকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। অপর এক খবরে বলা হয়, মিয়ানমারকে অস্ত্র না দিতে ইসরাইলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের একদল ইহুদি ধর্মযাজক (রাব্বি)। মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর হাতে রোহিঙ্গাদের নির্যাতিত হওয়ার প্রেক্ষাপটে গত বৃহ্স্পতিবার তারা এ আহ্বান জানান। রাব্বিদের নিউ ইয়র্কভিত্তিক একটি সংগঠনের আহ্বান অন্তত ৩০০ রাব্বি এ সংক্রান্ত একটি আবেদনে সই করেছেন। ওই আবেদনে ইসরাইলকে মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি না করার আহ্বান জানানো হয়েছে। আবেদনে বলা হয়, আমেরিকান নাগরিক ও ইহুদি হিসেবে আমরা যুক্তরাষ্ট্র বা ইসরাইলকে এমন কোনও বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দান বা অস্ত্র সরবরাহ মেনে নিতে পারি না, যারা একটি সংখ্যালঘু জনগোীর বিরুদ্ধে নৃশংস জাতিগত নিধন চালাচ্ছে। এতে আরও বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ইতোমধ্যে অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করেছে। ইতালি ছাড়া ইইউভুক্ত বাকি দেশগুলো সামরিক প্রশিক্ষণ দান বন্ধ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলেরও তা-ই করা উচিত। মিয়ামনারের কাছে ইসরাইল অস্ত্র বিক্রি করেছে বলে স¤প্রতি একটি খবর প্রকাশিত হলে মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল রাব্বিরা এ উদ্যোগ নেন। আগে বিভিন্ন সময়ে মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি করলেও এ নিয়ে ইসরাইলের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। সিএনএন, ওয়াশিংটন পোস্ট, টাইমস অব ইসরাইল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ