• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৭:০৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
নিউইয়র্কে সেইভ দ্য পিপল’র উদ্যোগে হালাল খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সেন্ট মার্টিনের নিরাপত্তা নিয়ে স্বার্থান্নেষী মহল গুজব ছড়াছে : আইএসপিআর মুসলিম বিশ্ব নিরানন্দে ঈদ উদযাপন করছে : এরদোয়ান ছেলে জয়ের নামে ছাগল কোরবানি দেবেন অপু, বুবলী দিচ্ছেন গরু ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে যাওয়ার পথে লঞ্চ আটকে দিলেন ম্যাজিষ্ট্রেট সোনাতলা পৌরসভায় ভিজিএফের এর চাল বিতরণ শেষ লগ্নে জমে উঠেছে কলকাতার পশুর হাট, কদর বেড়েছে দুম্বা ও খাসির প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় সেনাবাহিনী বিশ্ব-দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে : সেনা প্রধান বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়ে ১৯ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। সরকার বিদেশের ওপর নির্ভর করে ক্ষমতায় আছে : মির্জা ফখরুল

পুলিশ হেফাজতে আফরোজা বেগম নামের এক নারীর মৃত্যুর অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : রবিবার, ২ জুন, ২০২৪
আফরোজা বেগম

যশোরের অভয়নগরে পুলিশ হেফাজতে আফরোজা বেগম (৪০) নামের এক নারীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। ওই নারীর পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, নারীকে পুলিশ সদস্যরা নির্যাতন করায় তার মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে পুলিশ দাবি করেছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (২ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে আফরোজা বেগমের মৃত্যু হয়। নিহত আফরোজা বেগম অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের জলিল মোল্লার স্ত্রী।

আফরোজা বেগমের ছেলে মুন্না মোল্লা (১৬) জানায়, স্থানীয় একটি মহলের ইন্ধনে অভয়নগর থানা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সিলন আলী, এএসআই শামসুল হক শনিবার (১ জুন) দিবাগত রাত ১২টার দিকে তাদের বাড়িতে আসে। পরে ইয়াবা ট্যাবলেট দেখিয়ে তার মাকে আটক দেখায়। এ সময় সিভিল পোশাকে থাকা দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ আরও এক নারী পুলিশ তার মাকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে মারধর করে। পরে রাত ১টার দিকে থানায় নিয়ে যায়।

রোববার সকালে থানায় গিয়ে দেখে তার মা খুব অসুস্থ। পুলিশ তার মাকে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। চিকিৎসকরা কয়েকটি টেস্ট দিলেও পুলিশ সদস্যরা সেগুলো করতে না দিয়ে ফের থানায় নিয়ে আসে। থানায় আবারও অসুস্থ হয়ে পড়লে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মা আফরোজা বেগমের মৃত্যু হয়।

আফরোজা বেগমের স্বামী জলিল মোল্লা বলেন, আমি আগে নেশা করতাম। এখন ভালো হয়ে গেছি। এখন অটোভ্যান চালায়। আমি আর আমার বড় ছেলে অটোভ্যান চালিয়ে একটা বাড়ি করেছি। এই বাড়ি করার সময় স্থানীয় তরিক শেখসহ আরও কয়েকজন আমাদের কাছে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দেওয়ায় তারা আমাদের নানাভাবে হুমকি-ধামকি দেয়। গতকাল তরিক শেখও পুলিশের সঙ্গে আমাদের বাড়িতে আসে।

তিনি আরও বলেন, তরিক শেখ সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। তার নামে অভয়নগর থানায় বিভিন্ন মামলা রয়েছে। এলাকায় ত্রাস হিসেবে পরিচিত।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে অভয়নগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বলেন, গতকাল শনিবার রাত দেড়টার দিকে মাদকসহ ওই নারীকে আটক করা হয়। তাকে কোনো ধরনের নির্যাতন করা হয়নি। সকালে তিনি অসুস্থ বোধ করলে স্বজনদের উপস্থিতিতেই তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। তার উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদরোগ থাকায় পরে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু পথে তিনি মারা যান।

তিনি আরও বলেন, স্বজন হারিয়ে ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে অনেক কথাই বলতে পারে। প্রকৃতপক্ষে পুলিশের কোনো সদস্য ওই নারীর সঙ্গে দুর্ব্যবহারও করেনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ