• মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৬:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

এইচএসসি পরীক্ষার ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা

আপডেটঃ : বুধবার, ১ নভেম্বর, ২০১৭

প্রতিটা কাজের সাথে কমবেশি কারিগরি দক্ষতা জড়িত

মো. কবির হোসেন সুজন

সিনিয়র প্রভাষক

ব্যবস্থাপনা বিভাগ, নিকুঞ্জ মডেল কলেজ,ঢাকা।

 

প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দ অনুশীলন বিভাগে তোমাদের স্বাগতম। ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ের দ্বিতীয়পত্রে দ্বিতীয় অধ্যায় থেকে তোমাদের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ অনুধাবনমূলক প্রশ্ন এবং তার উত্তর উপস্থাপন করা হলো।

 

বৈজ্ঞানিক ব্যবস্থাপনা বলতে কি বুঝায়

উত্তর: ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে গতানুগতিকতা পরিহার করে বিজ্ঞান বা পরীক্ষা নিরীক্ষা ও বিচার বিশ্লেষণের আলোকে সংঘবদ্ধ জ্ঞানের প্রয়োগকেই বৈজ্ঞানিক ব্যবস্থাপনা বলা হয়।

টেইলর বৈজ্ঞানিক ব্যবস্থাপনার জনক। এই ব্যবস্থাপনায় বেশ কিছু আদর্শ রয়েছে। আদর্শ সমূহের মধ্যে রয়েছে টিপসহি পদ্ধতির পরিবর্তে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির ব্যবহার, বৈজ্ঞানিক উপায়ে কর্মী নির্বাচন, প্রশিক্ষণ দান ও উন্নয়ন,সৌহাদ্যপূর্ণ শ্রম ব্যবস্থাপনা সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা,ব্যবস্থাপনা ও শ্রমিক কর্মীদের মধ্যে দায়িত্ব ও কর্তব্যের সুষ্ঠ বন্টন। টেইলর এই গবেষণার মাধ্যমে কার্যক্ষেত্রে পদ্ধতিগত উন্নয়নের উপর জোর দেন। অর্থাত্ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির প্রয়োগ ঘটাতে চান।

শৃঙ্খলার নীতি বলতে কি বুঝায় ?

উত্তর: যোগ্য ব্যক্তিকে যোগ্য স্থানে এবং সঠিক বস্তুকে সঠিক স্থানে স্থাপনের   নীতিকে শৃঙ্খলার নীতি বলা হয়। এখানে শৃঙ্খলা বলতে উপায়-উপকরণের শৃঙ্খলাকে বুঝানো হয়েছে। প্রায়ই দেখা যায় ব্যক্তির যোগ্যতা ও মেধার চাইতে ব্যক্তিগত সর্ম্পক, রেফারেন্স ইত্যাদির প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হয়। এর ফলে প্রতিষ্ঠানে যেমন কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধি পায় না তেমনি প্রতিষ্ঠানে অদক্ষতা দেখা দেয়। তাই কাজের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে শৃঙ্খলার নীতি অনুসরণ করা হয়।

ব্যবস্থাপকের দক্ষতা বলতে কি বুঝায়?

উত্তর: ব্যবস্থাপকীয় দক্ষতা বলতে ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট কাজগুলো সঠিকভাবে, সঠিক সময়ে ও স্বল্প ব্যয়ে সম্পাদন করাকে ব্যবস্থাপকীয় দক্ষতা বলা হয়।

ন্যূনতম শক্তি, অর্থ, সামর্থ্য ও সম্পদকে কাজে লাগিয়ে প্রতিষ্ঠানিক লক্ষ্য অর্জনের বিষয়টি একজন আদর্শ ব্যবস্থাপকের দক্ষতার উপর নির্ভরশীল। ব্যবস্থাপকের এরূপ দক্ষতা তার কতিপয় জ্ঞান,গুণ ও সামর্থ্যের সাথে সম্পর্কযুক্ত। ব্যবস্থাপকের এই সব গুণ বা দক্ষতা প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতাকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে। তাই নিজের কাজ সঠিক সময় পালন করতে পারাকেই ব্যবস্থাপনা দক্ষতা বলা হয়।

কারিগরি দক্ষতা বলতে কি বুঝায়?

উত্তর: কোন কার্য সম্পাদনে যে পদ্ধতি,কৌশল ও যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয় তা সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারাকে কারিগরি দক্ষতা বলা হয়।

প্রতিটা কাজের সাথে কমবেশি কারিগরি দক্ষতা জড়িত। কারণ কার্যের কারিগরি জ্ঞান থাকলে প্রতিটা কাজ দ্রুত ও নির্ভুলভাবে করা সম্ভব। কোন যন্ত্রপাতি ব্যবহারের জ্ঞান যেমনি কারিগরি দক্ষতা, তেমনি কোম্পানির হিসাব সংরক্ষণ, উদ্ধৃত্তপত্র তৈরী, হিসাব নিরীক্ষার জ্ঞান কারিগরি দক্ষতার পর্যায়ভূক্ত। তাই যে যে কাজ করে সেই কাজের কৌশল,পদ্ধতি ও ব্যবহারকে কারিগরি দক্ষতা বলা হয়।

প্রশাসন বলতে কি বুঝায়?

উত্তর: ব্যবস্থাপনার উপরিপর্যায়ে অধিষ্টিত ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের প্রয়াস প্রচেষ্টাকে প্রশাসন বলা হয়।

প্রশাসন হলো মানব দেহের মস্তিষ্ক স্বরূপ। কারণ মস্তিষ্ক করণীয় নির্দেশ করে, যা শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের দ্বারা বাস্তবায়িত হয়। তাই যারা প্রতিষ্ঠানের সর্বোচ্চ স্তরে অধিষ্ঠিত থেকে প্রতিষ্ঠানের নীতি ও উদ্দেশ্য ঠিক করে তাদেরকে প্রশাসন বলা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ